Lead Banner

মেসির ভরসা দর্শকরা!

6

স্পোর্টস ডেস্ক:  সেই একই প্রতিপক্ষ। সেই কোপা ডেল রের কোয়ার্টার ফাইনালেরই ম্যাচ। অথচ এক সপ্তাহের ব্যবধানে বার্সেলোনার পরিকল্পনা-মনোভাবে আকাশ-পাতাল পার্থক্য। গত বুধবার সেভিয়ার মাঠের প্রথম লেগটা বার্সেলোনা নিয়েছিল হালকাভাবে। অথচ সেই সেভিয়ার বিপক্ষেই আজকের দ্বিতীয় লেগটি বার্সেলোনার কাছে ‘যুদ্ধ’! রীতিমতো ঘোষিত যুদ্ধ! কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে থেকে থেকে শুরু করে অধিনায়ক মেসি, কাতালন শিবিরেই সবাই একবাক্যে আজকের ন্যু-ক্যাম্পের ফিরতি লেগটাকে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন।

কেন? কারণটা ফুটবলপ্রেমীদের জানাই। গত বুধবার প্রথম লেগে অতি বিলাসিতা দেখিয়ে লিওনেল মেসি, উসমানে ডেম্বেলে, সার্জিও বুসকেটসদের পুরো বিশ্রাম দিয়েছিলেন বার্সা কোচ। এমনকি লুইস সুয়ারেজ, জর্ডি আলবাদেরও রাখেন বদলি তালিকায়। রোটেশন নীতিতে এসব তারকাদের বসিয়ে রেখে সেদিন কোচ ভালভার্দে বাজিটা ধরেন তরুণদের নিয়ে।

সেই বিলাসী বাজির বড় খেসারতই দিয়ে হয়েছে বার্সাকে। সেভিয়ার মাঠ থেকে ফিরতে হয়েছে ২-০ গোলের হার নিয়ে। ফল, কোপা ডেল রের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই ছিটকে পড়ার শঙ্কায় কাঁপছে বার্সা।

মৌসুমের প্রায় মাঝপথেই স্বপ্নের ‘ট্রেবল’ জয়ের স্বপ্ন মুখ থুবড়ে পড়ার উপক্রম। এই শঙ্কা মুছে ফেলতে হলে আজ ফিরতি লেগে বার্সাকে অন্তত ৩-০ গোলে জিততে হবে।

৩-০ গোলের জয়ের মিশন। যুদ্ধই তো। আর এই যুদ্ধে জেতার জন্য সবকিছুই করতে প্রস্তুত বার্সা কোচ। অতি বিলাসী নীতি থেকে সরে এসে কোচ ভালভার্দে আজ সিরিয়াস। এঁটেছেন ভাণ্ডারের সব সেরা অস্ত্রই ব্যবহার করার রণ-পরিকল্পনা। মেসি, সুয়ারেজ, ডেম্বেলে, বুসকেটস, জর্ডি আলবা-সব সিনিয়রদের ফিরিয়ে এনেছেন শুরুর একাদশে! মেসি-সুয়ারেজরাও যুদ্ধে জিততে মরিয়া। না হলে যে ‘ট্রেবল’ জয়ের স্বপ্ন নিভে যাবে।

গত ৪ মৌসুমেই এই কোপা ডেল রের শিরোপা উৎসব করেছেন মেসিরা। এবার কিনা শেষ আট থেকেই বিদায়ের শঙ্কা। মেসিরা কিছুতেই বিদায় নিতে রাজি নন। কোচ ভালভার্দের সঙ্গে সুর মিলিয়ে অধিনায়ক মেসিও বলেছেন, সেমিফাইনালে যাওয়ার জন্য মাঠে সবকিছুই করবেন তারা। নিজেদের উজাড় করে দেবেন ন্যু-ক্যাম্পে।

কঠিন সমীকরণ মেলানোর কাজটা মাঠে খেলেয়াড়দেরই। ক্যারিয়ারে মাঠের অনেক যুদ্ধেই বার্সাকে জিতিয়েছেন ম্যাচে। আর্জেন্টাইন সুপারস্টপার একক নৈপূণ্যে অনেক অনেকবার মিলিয়েছেন কঠিন সমীকরণ। আজও তার দিকেই তাকিয়ে বার্সেলোনার সমর্থকরা। তবে অধিনায়ক মেসির অভিমত খেলেয়াড়রা নন, আজকের কঠিন যুদ্ধে বার্সেলোনাকে জেতাতে পারবেন একমাত্র দর্শক-সমর্থকরা! তার বার্তাটা স্পষ্ট, গ্যালারিভর্তি দর্শকদের পূর্ণ সমর্থন কামনা করছেন মেসি।

যুদ্ধে সমর্থকদের পাশে থাকার আহ্বান জানিয়ে মেসি বলেছেন, ‘সেভিয়ার মতো দুর্দান্ত একটা দলের বিপক্ষে ২-০ গোলের ঘাটতি পূরণ করাটা কঠিনই হবে। তবে এই যুদ্ধে জিততে সমর্থকদের খুব দরকার আমাদের। সমর্থকদের পূর্ণ সমর্থনই পারবে দলকে জেতাতে!’

প্রতিপক্ষ সেভিয়ার প্রশংসা করে বলেছেন, ‘তাদের দলটিতে দারুণ সব খেলোয়াড় আছে। পতি আক্রমণে তারা খুবই ভয়ঙ্কর। তবে আশা করি, সমর্থকরা পাশে থাকলে আমরা এই বাঁধা উতরাতে পারব। অতীতেও আমরা তা করে দেখিয়েছি।’

মেসি না বললেও ন্যু-ক্যাম্পের দর্শকেরা দলকে অনুপ্রেরণা জোগাতে কার্পণ্য করতো না। তবে যেহেতু মেসি আহ্বান জানিয়েছেন পূর্ণ সমর্থন দেওয়ার, ন্যু-ক্যাম্পে আজ যে পুরো ৯০ মিনিট ধরেই সমুদ্রের গর্জন চলবে, সেটি অনুমিতই।

সেই গর্জনে উজ্জীবিত হয়ে মেসিরা সেমিফাইনালের ছবি আঁকতে পারবেন কি না কৌতূহল থাকবে তা নিয়েই।