Lead Banner

বাগদাদিকে জীবিত ধরার চেষ্টা আমেরিকার

8

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ইরাক ও সিরিয়াভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) নেতা আবুবকর আল-বাগদাদিকে আমেরিকা জীবিত ধরার চেষ্টা করছে। ইরাকি সামরিক বাহিনীর এক সিনিয়র কর্মকর্তা ব্রিটেনভিত্তিক আল-আরাবিয়ার ইংলিশ ভার্সনকে এ কথা জানিয়েছেন।

আহমাদ আল-হামদানি নামের ওই ইরাকি নিরাপত্তা বিশ্লেষক বলেছেন, এ জন্য মার্কিন সামরিক বাহিনীর একটি টিম স্থানীয় সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সের, যারা মার্কিন বাহিনীর সঙ্গে আইএসবিরোধী অভিযানে অংশ নিচ্ছে, সঙ্গে কাজ করছে। তারা এখন বাগদাদির অবস্থান শনাক্তের চেষ্টা করছে, যেমনটা করা হয়েছিল আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের ক্ষেত্রে। উত্তর পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে অবস্থানরত বিন লাদেনকে হত্যা করে মার্কিন বাহিনী।

তিনি আরো জানান, মার্কিন বাহিনীর ওই টিম মনে করছে, সিরিয়ার দিয়ের আল-জোর প্রদেশের ১০ কিলোমিটার এলাকার মধ্যে কোথাও থাকতে পারেন বাগদাদি।

হামাদি বলেন, ‘আমাদের কাছে তথ্য আছে যে, যুক্তরাষ্ট্র বাগদাদিকে জীবিত চাচ্ছে, যাতে সিরিয়ায় মার্কিন বিশেষ বাহিনীর প্রবেশের ব্যাখ্যা দেওয়া যায় এবং সামরিক জোন প্রতিষ্ঠার বিষয় বিবেচনা এবং অবশিষ্ট গ্রাম ও সিরিয়া ছোট শহরগুলোতে কুর্দি যোদ্ধাদের, যাদের রাষ্ট্রের জন্য হুমকি মনে করে তুরস্ক, প্রবেশে দেরির বিষয়টি ব্যাখ্যা করা যায়।’

তিনি আরো বলেন, বাগদাদির অবস্থান শনাক্তের বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে হচ্ছে, ‘‘সুতরাং রাশিয়া কিংবা তুরস্কের ভূমিকার যে কথা বলা হচ্ছে তা সত্য নয়’’।

প্রসঙ্গত, ইরাক ও সিরিয়া থেকে আইএসকে হঠাতে যুক্তরাষ্ট্র একটি মিত্রবাহিনীর নেতৃত্ব দিচ্ছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আইএস বর্হিবিশ্বে, বিশেষ করে ইউরোপ, বেশ কিছু হামলা চালিয়েছে।

২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সিরিয়া ও ইরাকের মধ্যবর্তী অঞ্চলে আত্মপ্রকাশ করে আইএস এবং তারা ওই অঞ্চলের প্রায় এক-তৃতীয়াংশের নিয়ন্ত্রণ নেয়।

এরপর বাগদাদি সেখানে খেলাফত প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন যার মূল কেন্দ্র হয় ইরাকের রাজধানী বাগদাদের উত্তরে সিরিয়ার আলেপ্পো।

সম্প্রতি জাতিসংঘের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, আইএসের সেই খেলাফত এখন ধ্বংস হয়ে গেছে। তবে ইরাক ও সিরিয়া মিলে এখনও আইএসের প্রায় ৩০ হাজার সদস্য থাকতে পারে বলে মনে করে সংস্থাটি।

উল্লেখ্য, এর আগে কয়েকবার খবর বের হয়েছে যে, বাগদাদি মারা গেছেন। কিন্তু গত বছরের মে মাসে ইরাকের গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, ইরাক সীমান্তের সিরিয়ান ভূখণ্ডে এখনও জীবিত আছেন বাগদাদি।

তবে বাগদাদির সমর্থনে এখন ছোট্ট একটি গ্রুপ আছে বলে মনে করা হয়। এর আগে বাগদাদিকে ধরে দিতে আড়াই কোটি ডলার পুরস্কার ঘোষণা করে যু্ক্তরাষ্ট্র।