Lead Banner

সৌদিকে অস্ত্র রফতানি করবে না জার্মানি

2

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তুরস্কের ইতাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে হত্যা হওয়া সাংবাদিক জামাল খাশোগির মৃত্যু রহস্যের ধোঁয়াশা না কাটা পর্যন্ত জার্মানি সৌদি আরবে অস্ত্র রপ্তানি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই সাথে তারা ইউরোপীয় ইউনিয়নকেও (ইইউ) সৌদিকে অস্ত্র রপ্তানি থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে।

সোমবার (২২ অক্টোবর) জার্মান অর্থমন্ত্রী পিটার আলতম্যায়ার জেডডিএফ সম্প্রচার মাধ্যমকে তিনি বলেন, খাশোগির ঘটনায় সৌদি আরব এ পর্যন্ত যেসব ব্যাখ্যা দিয়েছে তা মোটেও সন্তোষজনক নয়।

‘ কি ঘটেছে তার সত্যতা জানতে চাই। আর তাই সরকার এ মুহূর্তে সৌদি আরবে আর কোনো অস্ত্র রপ্তানির অনুমোদন দেবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাছাড়া, খাশোগির ঘটনায় সৌদি আরবের ওপর চাপ বাড়ানোর জন্য ইইউ এর অন্য দেশগুলোরও অস্ত্র রপ্তানি বন্ধ করা উচিত বলেও আলতম্যায়ার মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, “ইউরোপীয় দেশগুলো সবাই মিলে একটি যৌথ পদক্ষেপ নেওয়াটা জরুরি। কারণ, সব ইউরোপীয় দেশ একত্রিত হলে রিয়াদ সরকারের ওপর এর একটা প্রভাব পড়বে। কিন্তু আমরা রপ্তানি বন্ধ করলেও অন্য দেশগুলো যদি সে শূন্যস্থান পূরণ করতে থাকে তাহলে এতে কোনো কাজ হবে না।”

চলতি মাসের ২ অক্টোবরে তুরস্কে ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে খাশোগিকে হত্যাই করা হয়েছে বলে এতদিনে সরাসরি স্বীকার করেছে সৌদি আরব।

এর আগে কনস্যুলেট ভবনে ঢোকার পর থেকে খাশোগি নিখোঁজ হওয়ার সময় থেকে সৌদি আরব নানা সময়ে নানারকম কথা বলে এসেছে। খাশোগি নিখোঁজের ব্যাপারে কিছু জানা নেই বলেও দেশটি এর আগে দাবি করেছে।

শনিবার (২০ অক্টোবর) ঘটনার ১৭ দিন পর কনস্যুলেট ভবনের ভেতরই খাসুগজি নিহত হয়েছে বলে স্বীকার করে সৌদি আরব। কিন্তু আন্তর্জাতিক মহল তাদের দেওয়া ঘটনার ব্যাখ্যা মেনে নেয়নি। এরপরের দু’দিন সৌদি আরব একাধিকবার তাদের বিবৃতি পাল্টেছে।

রোববার (২১ অক্টোবর) সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুবাইর সরাসরি খাশোগি নিহত হয়েছেন বলে জানান। এ ঘটনাটিকে একটি ‘বড় ধরনের মারাত্মক ভুল’ বলেও মন্তব্য করেন। তবে জুবাইর সৌদি ক্রাউন প্রিন্সকে বাঁচানোর চেষ্টা করে বলেন, তিনি কিছু জানতেন না।

রোববার এক বিবৃতিতে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল বলেছেন, খাশোগির বিষয়টি নিয়ে অস্পষ্টতা যতদিন না কাটবে ততদিন পর্যন্ত সৌদি আরবে অস্ত্র রপ্তানি বন্ধ রাখবে জার্মানি।

বীকনবাংলা/কেএ