Lead Banner

ছেলের পাশে চিরনিদ্রায় রমা চৌধুরী

9

ছেলে দীপংকর টুনুর সমাধির পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন ‘একাত্তরের জননী’ খ্যাত রমা চৌধুরী। সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে তার প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়।

শহীদ মিনার ও তার দীর্ঘদিনের স্মৃতিবিজড়িত চেরাগি পাহাড় মোড়ে লুসাই ভবনের নিচে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বিকেল সাড়ে চারটায় মরদেহ নেয়া হয় বোয়ালখালী উপজেলার পোপাদিয়ায় গ্রামে নিজ বাড়িতে। রমা চৌধুরী হিন্দুধর্মীয় রীতি অনুযায়ী মরদেহ পোড়ানোয় বিশ্বাস করতেন না। তাই সেখানে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ছেলের পাশেই সমাধিস্থ করা হয়।

শহীদ মিনারে প্রশাসনের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল মান্নান এবং ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। পরে দুপুর ১২টায় চট্টগ্রামের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার দেন।

এর আগে সোমবার সকাল থেকেই শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে জড়ো হতে থাকেন রাজনীতিক, শিল্পী-সংস্কৃতিকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। হাতে ফুল নিয়ে সেখানে জড়ো হন বিভিন্ন স্কুলের শত শত কোমলমতি শিক্ষার্থীও। হাজির হন প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে রমা চৌধুরীর মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান চট্টগ্রাম মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোজাফফর আহমেদ, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাৎ হোসেন ও সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, চসিকের ভারপ্রাপ্ত মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, হাসান মুরাদ বিপ্লব ও শৈবাল দাশ সুমন। উদীচীর জেলা সভাপতি শহীদ জায়া মুশতারি শফি, সহ-সভাপতি ডা. চন্দন দাশ, কমিউনিস্ট পার্টির জেলা সম্পাদক অশোক সাহা, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সম্পাদক শরীফ চৌহান, বিএফইউজের (একাংশ) সহ-সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, সিইউজের সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর, জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আতিক রিয়াদ।

সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) ভোর ৪টা ৪০ মিনিটে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন একাত্তরের জননীখ্যাত লেখিকা রমা চৌধুরী।

বীকনবাংলা/এইচআর